Never take quick decision | চটজলদি কোন সিন্ধান্ত নেওয়ার আগে ভাবুন

Quick Decision – নেওয়ার আগে ভাবুন কারন চটজলদি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলাটা খুব হিরোটিক ব্যাপার কিন্তু তার প্রতিফলন খুব একটা সুখকর হয়না। আমাদের প্রাত্যহিক জীবনে Quick Decision making একপ্রকার ফাদ। তাই প্রলোচিত হয়ে কখোনই এটা করবেন না।

হঠকারিতা বর্জন কর, আত্মসংযম ও ধৈর্যধরা অভ্যাস কর

দৈনন্দিন জীবনে, হঠকারিতাবশত মনে যাখুশী কথা আসবে, সেই অনুসারে কাজ করবে না ও কথা বলবে না। এটা দুর্বল মনের পরিচয় দেয়। মনকে বশে রাখাে ও কখনও তােমাকে দাসত্ববন্ধনে আবদ্ধ করতে দেবেনা। তােমার ইচ্ছানুসারে মনকে চালনা কর এবং গন্ডিবদ্ধ সীমানার বাইরে একে যেতে দেবেনা। তােমার বুদ্ধিমত্তা, বিচারবুদ্ধি ও বিবেক দিয়ে হীন-মনােবৃত্তিকে দাবিয়ে রাখতে দেবে। সুপ্তমনের কামনাবাসনাকে সঙ্গেসঙ্গে দমন করার বদলে ভালােভাবে কিছু সময় ব্যয় করে পর্যবেক্ষণ কর ও পুরােপুরি অবহেলা কর। এইভাবে ধৈর্য্য ধারনের অভ্যাস করলে ধীরেধীরে তােমার ইচ্ছাশক্তি ও মানসিক বল বৃদ্ধি পাবে – যা কিনা সফল জীবনের অন্যতম প্রয়ােজনীয় শর্ত।

মনে কর, হঠাৎ তােমার মিষ্টি খেতে ইচ্ছা হল । সেমতাবস্থায়, দুটি রাস্তা খােলা আছে। হয় তুমি তৎক্ষণাৎ মিষ্টির দোকানে ছুটবে কিংবা বসে চিন্তা করবে কী দরকার কয়েক মাইল ছুটে মিষ্টির দোকানে যাওয়ার। দ্বিতীয় পদ্ধতিতে তােমার ইচ্ছাশক্তি বাড়বে। সর্বত্র এই ধৈৰ্য্য প্রয়ােগ করে তােমার ইচ্ছাশক্তি বাড়াতে পার এবং ব্যস্ততা, উদ্বেগ ও পার্থিব ভােগ্যবস্তুর প্রতি লালসা, ইন্দ্রিয়সুখের লােভ পরিত্যাগ করতে পারাে। শুধুমাত্র ঈশ্বরলাভের জন্য অধীর হবে, অন্য কোনাে কারণে নয়।

নদীর ওপর বাঁধ দিলে জলপ্রপাতের গতি যেমন অতিমাত্রায় “সঞ্চয় করে, তেমনই মনকে অনুশাসনে বেঁধে রাখলে মনের শক্তিও অতিমাত্রায় বৃদ্ধি পায়।

quick decision

প্ররােচনার ফাদে পা দিয়ে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করবেনা

যখনই কোনাে ব্যক্তির অহেতুক সমস্যার কথায়, মন্তবে টিপ্পনিতে তুমি চঞ্চল হবে – তখনই তােমার প্রতিক্রিয়া জানাবে না। যতই প্ররােচনা থাকুক। কিছু সময় নাও – বিক্ষুব্ধ মনে কোন কথাবার্তার থেকে বিরত থাকো। সেই ব্যক্তি ও পরিস্থিতি থেকে সাময়িকভাবে দূরে সরে যাও। নির্জনে চুপ করে বসে থাকো কিছুক্ষণের জন্য। ধীরে-ধীরে নিজে শান্ত হও এ ঘটনাকে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে বিচার করে দেখ । খুব সম্ভবতঃ এমতাবস্থায় তুমি আরও ভালভাবে সমস্যাকে অনুধাবন করত পারবে। প্ররােচনায় প্রভাবে বিচারশক্তি লােপ পায়।কেউ জানতে চাইলে তবেই তুমি যে নির্দোষ তার স্বপক্ষে যুক্তি দেখাবে। নিজের যুক্তি কখনই জোর করে অন্যের উপর চাপিয়ে দেবে না। জবাব দেওয়ার সময় তােমার কণ্ঠস্বর যেন ভদ্র, শ্রদ্ধাপরিপূর্ণ ও নিজের আয়ত্ত্বাধীন থাকে।

ভদ্রতার সীমানার বাইরে যাবে না, জবাব দেওয়ার সময় চীৎকার করবে না যতই না তােমার প্রতি অবিচার ও কটুক্তি করা হােক না কেন।

এই ধরনেই লেখা অবশ্যই আপনি আমনার বন্ধুদের মধ্যে শেয়ার করবেন ও আরো লেখা পড়তে আমাদের ব্লগ ফলো করবেন।

Blog topic: Never take quick decision

More Topics:

Low Self confidence makes us weak – Get rid from it – Bengali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *